News

প্রধানমন্ত্রীর কাছে ব্যাংক বন্ধ রাখার অনুরোধ বিডব্লিউএবির
৭ এপ্রিল ২০২০ | আমাদের সময়


করোনাভাইরাসের কারণে দেশের সম্ভাব্য মন্দা কাটানোর লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গৃহীত প্রণোদনা প্যাকেজের প্রশংসা করেছে ব্যাংকার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ (বিডব্লিউএবি)। একই সঙ্গে ভাইরাসটি মোকাবিলায় বাংলাদেশের ব্যাংকগুলো বন্ধ রাখার অনুরোধ জানিয়েছে সংগঠনটি।
বিডব্লিউএবির সভাপতি কাজী মো. শফিকুর রহমান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ অনুরোধ জানানো হয়। এতে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি চারটি অনুরোধ করা হয়।
ব্যাংকগুলো বন্ধ রাখার অনুরোধসহ আরও তিনটি বিষয় বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করে বিডব্লিউএবি। সেগুলো হলো- পরবর্তী অবস্থার উন্নতি সাপেক্ষে ব্যাংকের সীমিত শাখা সপ্তাহে একদিন কার্যক্রমের জন্য খোলা রাখা, ব্যাংকের লেনদেনের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে প্রয়োজনীয় সীমিত সংখ্যক লোকবল রোস্টার ডিউটির মাধ্যমে হাজির থাকার নির্দেশ এবং রোস্টার ডিউটিরত কর্মকর্তাদের নিজ নিজ ব্যাংক কর্তৃক উপযুক্ত ভাতা প্রদান, এবং কোনো কর্মকর্তা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে নিজ নিজ ব্যাংক কর্তৃক তার সুচিকিৎসার ব্যবস্থা গ্রহন করা।

প্রধানমন্ত্রীর কাছে ব্যাংক বন্ধ রাখার অনুরোধ বিডব্লিউএবির
৭ এপ্রিল ২০২০ | কালের কন্ঠ


বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসের ভয়াবহতায় সব স্থবির হয়ে পড়েছে। কিছু দেশ জরুরি সেবা নিশ্চিত করার জন্য কিছু সেবা চালু রেখেছে। তবে অধিকাংশ দেশই লকডাউনের পথ বেছে নিয়েছে। বাংলাদেশেও গত ২৬ মার্চ থেকে কার্যত অঘোষিত লকডাউন চলছে। তবে চিকিৎসা সেবাসহ সীমিত আকারে চালু রাখা হয়েছে ব্যাংক সেবা। সম্প্রতি করোনাভাইরাসের কারণে দেশের সম্ভাব্য মন্দা কাটানোর লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন। গৃহীত প্রণোদনা প্যাকেজের প্রশংসা করেছে ব্যাংকার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ (বিডাব্লিউএবি)। একই সঙ্গে ভাইরাসটি মোকাবিলায় বাংলাদেশের ব্যাংকগুলো বন্ধ রাখার অনুরোধ জানিয়েছে সংগঠনটি।
গতকাল সোমবার বিডাব্লিউএবির সভাপতি কাজী মো. শফিকুর রহমান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ অনুরোধ জানানো হয়। এতে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি চারটি অনুরোধ করা হয়।
ব্যাংকগুলো বন্ধ রাখার অনুরোধসহ আরও তিনটি বিষয় বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করে বিডাব্লিউএবি। সেগুলো হলো- পরবর্তী অবস্থার উন্নতি সাপেক্ষে ব্যাংকের সীমিত শাখা সপ্তাহে একদিন কার্যক্রমের জন্য খোলা রাখা, ব্যাংকের লেনদেনের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে প্রয়োজনীয় সীমিত সংখ্যক লোকবল রোস্টার ডিউটির মাধ্যমে হাজির থাকার নির্দেশ এবং রোস্টার ডিউটিরত কর্মকর্তাদের নিজ নিজ ব্যাংক কর্তৃক উপযুক্ত ভাতা প্রদান এবং কোনো কর্মকর্তা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে নিজ নিজ ব্যাংক কর্তৃক তার সুচিকিৎসার ব্যবস্থা গ্রহন করা।

Appeal to Honorable Prime Minister from Bankers' Welfare Association Bangladesh (BWAB) to overcome Corona Crisis covered by GTV News.

ব্যাংক বন্ধ রাখার দাবি ব্যাংকার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের
৭ এপ্রিল ২০২০ | জাগোনিউজ২৪.কম


প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে ব্যাংক বন্ধ রাখার দাবি জানিয়েছে ব্যাংকার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ (বিডব্লিউএবি)। করোনাভাইরাস সংক্রমণরোধে এ দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি। মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) সংবাদ মাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে অবস্থার উন্নতি হলে ব্যাংকের সীমিতসংখ্যক শাখা সপ্তাহে একদিনের জন্য স্বল্পসংখ্যক জনবল দিয়ে চালানোরও নির্দেশনা দিতে অনুরোধ করা হয়েছে।
বিডব্লিউএবি সভাপতি কাজী মো. শফিকুর রহমান স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাসের কারণে দেশের সম্ভাব্য অর্থনৈতিক ক্ষতি মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত ৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ সময়োচিত ও বুদ্ধিদীপ্ত পদক্ষেপ।
বিজ্ঞপ্তিতে ব্যাংক বন্ধ রাখাসহ চারটি দাবি জানানো হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে-
১. করোনাভাইরাস সংকটের এই সময়ে অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের মতো ব্যাংকও সম্পূর্ণ বন্ধ রাখার নির্দেশনা দেয়া।
২. পরবর্তী সময়ে অবস্থার উন্নতি সাপেক্ষে ব্যাংকের সীমিতসংখ্যক শাখা সপ্তাহে একদিন কার্যক্রমের জন্য খোলা রাখা।
৩. ব্যাংকের লেনদেনের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে প্রয়োজনীয় সীমিতসংখ্যক লোকবল রোস্টার ডিউটির মাধ্যমে হাজির থাকার নির্দেশ এবং রোস্টার ডিউটিরত কর্মকর্তাদের নিজ নিজ ব্যাংক থেকে উপযুক্ত ভাতা প্রদান।
৪. কোনো কর্মকর্তা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে নিজ নিজ ব্যাংক তার সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করবে।